ফায়ার সার্ভিসের নারায়ণগঞ্জ জোন-২-এর উপসহকারী পরিচালক আলমগীর হোসেন ঘটনাটি নিশ্চিত করে প্রথম আলোকে বলেন, সাংহাই-৮ নামের জাহাজটি ভারত ও চট্টগ্রাম বন্দর থেকে নারায়ণগঞ্জে জ্বালানি তেল বহন করে আনে। বেশ কিছুদিন আগে তেল নামানোর পর জাহাজের কনটেইনারটি পানিভর্তি করে মেরামতের জন্য ডকইয়ার্ডে রাখা হয়েছিল। কিন্তু কনটেইনারে উৎপাদিত গ্যাস বের হওয়ার জন্য যে বাইপাস লাইন ছিল, ভুলবশত সেটি খোলা হয়নি। সকালে নুরুজ্জামান কনটেইনারটি ঝালাইয়ের জন্য গেলে কনটেইনারের ভেতর জমে থাকা গ্যাস বিস্ফোরণ হয়। এতে তিনিসহ দুই শ্রমিক আহত হন। নুরুজ্জামানকে উদ্ধার করে রূপগঞ্জ ইউএস বাংলা হাসপাতালে পাঠানো হয়। ওই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ প্রথম আলোকে জানায়, বিস্ফোরণে দগ্ধ ওই শ্রমিক পথেই মারা গেছেন। পরে ডকইয়ার্ড কর্তৃপক্ষ লাশ নিয়ে গেছে।

সকালে নুরুজ্জামান কনটেইনারটি ঝালাইয়ের জন্য গেলে কনটেইনারের ভেতর জমে থাকা গ্যাস বিস্ফোরণ হয়।

আহত আরেক শ্রমিককে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে ডকইয়ার্ডের মালিক মাসুদ আহমেদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এফ এম সায়েদ জানান, বেলা তিনটা পর্যন্ত এ ঘটনায় কোনো মামলা হয়নি। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ ১০০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।