পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আবদুল হান্নান নতুন ঘরবাড়ি নির্মাণের জন্য নিয়ে আসা ইট বাড়ি থেকে প্রায় ২০০ গজ দূরে খালপাড়া এলাকায় একটি পুকুরপাড়ে স্তূপ করে রেখেছিলেন। সোমবার দুপুর থেকে স্থানীয় একটি ভ্যান ভাড়া করে এসব ইট তিনি বাড়িতে নিয়ে আসছিলেন। এ সময় শিশু মজিবর ও হাবিবাও ভ্যানের পেছনে যাওয়া-আসা করছিল। সর্বশেষ সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে হান্নান তাঁর ছেলে-মেয়েসহ ভ্যান নিয়ে ইট আনতে পুকুরপাড়ে যান। এ সময় তিনি ভ্যানে ইট না তুলে শিশু দুটিকে পুকুরপাড়ে রেখে ভ্যানচালককে নিয়ে পার্শ্ববর্তী বিরানীজোত-নতুনবাজারে যান।

প্রায় ঘণ্টাখানেক পর হান্নান বাড়িতে এসে জানতে পারেন, ছেলে-মেয়ে বাড়িতে ফেরেনি। এরপর স্থানীয় লোকজনসহ পরিবারের সদস্যরা শিশুদের খুঁজতে শুরু করেন। পরে তাঁদের সন্দেহ হলে ইটের স্তূপের পাশের পুকুরে নেমে খুঁজতে শুরু করেন। রাত ১০টার দিকে পুকুরের পানির নিচ থেকে মৃত অবস্থায় শিশু দুটিকে উদ্ধার করেন স্থানীয় লোকজন।

খবর পেয়ে রাতেই তেঁতুলিয়া মডেল থানা-পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশু দুটির লাশের প্রাথমিক সুরতহাল করে। পুকুরপাড়ে থাকার সময় কোনো কারণে শিশু দুটি পুকুরের পানিতে পড়ে তলিয়ে গেছে বলে ধারণা করছেন স্বজনেরা।

তেঁতুলিয়া মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জাহাঙ্গীর আলম পুকুরের পানিতে ডুবে দুই ভাই-বোনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, পরিবারের সদস্যদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই দুই ভাই-বোনের লাশ রাতেই স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন