স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আজ দুপুরে আবদুল জলিল স্থানীয় গোগবাজার থেকে ১৫ টাকা কেজি দরে চাল আনতে বাড়ি থেকে বের হন। তিনি হেঁটে কেন্দুয়া-মদন সড়ক দিয়ে যাচ্ছিলেন। দুপুর ১২টার দিকে ওই সড়কের শাপলা ব্রিকস এলাকায় পৌঁছালে একটি ট্রাক তাঁকে চাপা দেয়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন।

পরে স্থানীয় লোকজন আবদুল জলিলকে উদ্ধার করে কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানকার চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

ব্রাহ্মণজাত গ্রামের বাসিন্দা ও কান্দিউড়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আবদুল আউয়াল বলেন, আবদুল জলিল একজন দরিদ্র কৃষক ছিলেন। তিনি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় ১৫ টাকা কেজি দরের চাল আনতে গোগবাজারে যাচ্ছিলেন। পথে ট্রাকচাপায় তিনি মারা গেছেন।

কেন্দুয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আলী হোসেন বলেন, দুর্ঘটনার সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। দুর্ঘটনার পর ট্রাক রেখে এর চালক পালিয়ে গেছেন। চালককে শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন