খুলনা দুদক কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. আবদুল ওয়াদুদ প্রথম আলোকে বলেন, মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

দুদক সূত্রে জানা যায়, পুলিশ কনস্টেবল হিসেবে চাকরিজীবন শুরু করেন আলী আকবর। পরবর্তী সময়ে পদোন্নতি পেয়ে এসআই হন। পুলিশে কর্তরত থাকা অবস্থায় সম্পদের পাহাড় গড়ে তোলেন আলী আকবর ও তাঁর স্ত্রী। দুদকের অনুসন্ধানে দুজনের নামে থাকা ৮৮ লাখ ২২ হাজার টাকার সম্পত্তির হিসাব পাওয়া যায়। কিন্তু দুদকের কাছে দেওয়া তথ্যে তাঁরা ২১ লাখ ৮২ হাজার টাকার তথ্য গোপন করে হিসাব বিবরণী জমা দিয়েছিলেন। মামলার এজাহারে তথ্য গোপন ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন