দুর্ঘটনার পর বাসটি পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার নাথেরপেটুয়া বাজার থেকে বাসটি জব্দ করা হয়। এ সময় বাসচালক এবং তাঁর সহকারীরা পালিয়ে যান। পরে সোনাইমুড়ী থানা-পুলিশ বাসটি জব্দ করে থানায় নিয়ে আসে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল সন্ধ্যায় খোরশেদ আলম পেশাগত কাজে মোটরসাইকেল চালিয়ে সোনাইমুড়ী বাজার থেকে পাশের চাষিরহাট বাজারে যাচ্ছিলেন। খোরশেদ মোটরসাইকেল নিয়ে সোনাইমুড়ী পৌরসভার রামপুর এলাকায় পৌঁছালে ঢাকাগামী একটি দ্রুতগতির লাল সবুজ পরিবহন পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে খোরশেদ সড়কে ছিটকে পড়লে গুরুতর আহত হন।

তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয় লোকজন খোরশেদকে উদ্ধার করে প্রথমে সোনাইমুড়ীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেওয়ার পথে রাত সাড়ে ১০টার দিকে কুমিল্লা গৌরীপুর বাজার এলাকায় তাঁর মৃত্যু হয়।

জানতে চাইলে সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হারুন আর রশীদ প্রথম আলোকে বলেন, খবর পাওয়ার পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থলে গেছে। তাৎক্ষণিকভাবে দুর্ঘটনাকবলিত বাসটি জব্দ করা হয়েছে। তবে বাসের চালক ও তাঁর সহকারী পালিয়ে গেছেন। এ ঘটনায় নিহত ব্যক্তির পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পাওয়া গেলে আইননানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন