আজ শনিবার দুপুরে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেওয়ার সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন এসব কথা বলেন। এ সময় অ্যাসোসিয়েশন অব ফরমার বিসিএস (এফএ) অ্যাম্বাসেডর্সের (আওফা) সভাপতি শমসের মবিন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল হাসান এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা তাঁর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এমনভাবে প্রচারণা করা হয়েছে যে যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে শত্রু বানানোর চেষ্টা করা হয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ২৬ অক্টোবর ওই অনুষ্ঠানে তিনি যে বক্তব্য দিয়েছেন, তা মিডিয়ার হেডলাইনের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক নেই। হেডলাইনগুলো বলেছে, আমেরিকা যুদ্ধবাজ, অমুক–তমুক, এসব কথা তাঁর মুখে আসেনি। কিন্তু ১৭টি গণমাধ্যম এ ধরনের মিথ্যা, বানোয়াট ও কাল্পনিক তথ্য দিয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী গণমাধ্যমের কর্তাব্যক্তির উদ্দেশে বলেন, ‘যে সাংবাদিকেরা এগুলো করেছেন, তাঁদের জন্য লজ্জার বিষয়, আপনাদের জন্য দুঃখের বিষয়। আপনাদের সহকর্মীরা এই ধরনের বানোয়াট জিনিস প্রকাশ করেন। তাঁরা হয়তো বাংলা বোঝেন না, না হয় ইচ্ছা করেই মিথ্যা প্রচারণা করেছেন।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘মিথ্যা প্রচার করায় যে অসুবিধা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র সরকার মনে করবে আমরা বোধ হয় তাদের শত্রু। এমনভাবে প্রচারণা করা হয়েছে যে যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে শত্রু বানানোর চেষ্টা করা হয়েছে। এটা খুবই দুঃখজনক ও লজ্জাজনক। আমি ওই সাংবাদিকদের বলছি, আপনাদের এই নিয়ে গবেষণা করা উচিত। এত নিম্নমানের সাংবাদিকতা আপনাদের জন্য দুঃখজনক। সাংবাদিকতা দিয়ে আমার কর্মজীবন শুরু করেছিলাম, তখন নীতিনৈতিকতা ছিল।’