পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে জিৎরামপুর গ্রামের আবুল হোসেন ও রমজান মিয়া এই দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ দীর্ঘদিনের। বিরোধের জেরে গতকাল শনিবার রাত থেকেই দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল। পরে আজ সকাল ৮টার দিকে দুই পক্ষের লোকজন টেঁটাসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। দফায় দফায় দুপুর পর্যন্ত চলে সংঘর্ষ। এতে পাঁচজন টেঁটাবিদ্ধ হয়ে এবং দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে অপর পাঁচজন আহত হয়েছেন। খবর পেয়ে মাধবদী থানার পুলিশ দুপুরে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় পুলিশের সহযোগিতায় টেঁটাবিদ্ধ ও আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

নরসিংদী সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক রোজী সরকার বলেন, ১০ জন তাঁদের হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। এর মধ্যে পাঁচজন টেঁটাবিদ্ধ ছিলেন। তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

এ ঘটনায় বক্তব্য জানতে দুই পক্ষের নেতৃত্ব থাকা আবুল হোসেন ও রমজান মিয়ার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাঁদের মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রকীবুজ্জামান বলেন, টেঁটাযুদ্ধের ঘটনায় ১২ জনকে আটক করা হয়েছে। বর্তমানে এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।