এর আগে ২১ জুলাই ঘর প্রদান অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে নিজের অনুভূতি ব্যক্ত করার সুযোগ পেয়েছিলেন খতিবুর রহমান। সেখানে তিনি বলেন, ‘এক মা আমাকে জন্ম দিয়েছেন, আরেক মা দিলেন ঘর।’

এ সময় খতিবুরের কথার জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, ‘আপনি এখন পঞ্চগড়েও কাজ করতে পারবেন। আমরা তো ক্ষুদ্রঋণের ব্যবস্থা করি, ট্রেনিং দিই। ওখানে স্কুল আছে, সেখানে ছেলেমেয়েদের পড়াতে পারবেন। ভালো থাকেন, দোয়া করি।’

খতিবুর রহমানের পৈতৃক নিবাস পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার তড়িয়া ইউনিয়নের শিখুপাড়া এলাকায়। সেখানে একটি আশ্রয়ণ প্রকল্পে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ২ শতাংশ জমিসহ টিনশেড পাকা ঘর পেয়েছেন তিনি।

জেলা প্রশাসন থেকে অটোভ্যান পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে জেলা প্রশাসককে জড়িয়ে ধরে কেঁদে ফেলেন খতিবুর রহমান। তিনি বলেন, ‘আমাদের মা প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া জমিসহ ঘর পেয়ে স্ত্রী–সন্তান নিয়ে এখন গ্রামেই বাস করছি। কিন্তু দীর্ঘদিন ঢাকায় থাকায় এখানে তেমন কাজকর্ম পাচ্ছিলাম না। এবার অটোভ্যান পেয়ে উপকৃত হলাম। আমার মতো অসহায় মানুষের জন্য এত কিছু করায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই।’

পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসক মো. জহুরুল ইসলাম বলেন, খতিবুর রহমানকে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর দেওয়া হয়েছিল। ওই দিন প্রধানমন্ত্রী তাঁকে বলেছিলেন, আর ঢাকায় থেকে কষ্ট করে রিকশা চালাতে হবে না। এখন থেকে নিজের এলাকায় কিছু কাজকর্ম করে চলতে পারবেন। সেই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে খতিবুরকে ভ্যান দেওয়া হলো।