শিক্ষার্থীদের হাতে ধরা প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিল, ‘ডেঙ্গু থেকে আমাদের সবাইকে সচেতন থাকতে হবে’; ‘ফুলের টব ও চৌবাচ্চায় জমানো পানি তিন দিন পরপর পরিবর্তন করুন’; ‘বাড়ির ছাদে ও টবে পানি জমতে দেওয়া যাবে না’; ‘যেখানে-সেখানে ময়লা ফেলা যাবে না, ডাস্টবিনে ময়লা ফেলুন’; ‘রাতে বা দিনে ঘুমানোর আগে মশারি ব্যবহার করুন’; ‘ডেঙ্গু জ্বরে আতঙ্কিত না হয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে সুস্থ থাকুন’। এ ছাড়া ডেঙ্গু জ্বরের লক্ষণের ব্যাপারেও বিভিন্ন তথ্যসংবলিত প্ল্যাকার্ড নিয়ে দাঁড়িয়েছিল শিক্ষার্থীরা।

এডিস মশা নিয়ন্ত্রণ ও সচেতনতা সৃষ্টির ব্যাপারে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে উদ্যোগের বিষয়ে জানতে চাইলে সিটি করপোরেশনের প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মো. মামুন বলেন, সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকেও সচেতনতামূলক কার্যক্রম চালানো হচ্ছে। তাঁরা মসজিদে প্রচার করেছেন। মাইকিং করেছেন। সিটি করপোরেশনের ফেসবুক পেজেও সচেতনতামূলক বিভিন্ন পোস্ট দেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া প্রতি শনিবার প্রতিটি ওয়ার্ডে লার্ভিসাইড (লার্ভা মারার ওষুধ) ব্যবহার কর্মসূচি চলছে।