পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রান্নাঘরের ধোঁয়া প্রতিবেশীর ঘরে প্রবেশ করা নিয়ে আবদুল জব্বারের ছেলে আকতার খন্দকারের সঙ্গে আলমগীরের কথা–কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে দুই পরিবারের সদস্যরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাতে আলমগীর মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে আত্রাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

আত্রাই থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. লুৎফর রহমান বলেন, খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে এলাকায় পুলিশি টহল জোরদার করা হয়েছে। এ ঘটনায় আকতার খন্দকারসহ কয়েকজনকে আসামি করে দুপুরে থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।