হাসপাতালের আইসিইউয়ের ইনচার্জ আবু হেনা মোস্তফা কামাল জানান, গত শুক্রবার সকালে খেজুরের কাঁচা রস খেয়েছিল সোয়াদ। এরপর জ্বর ও খিঁচুনি দেখা দেয়। একপর্যায়ে সে অচেতন হয়ে পড়ে। শুক্রবার বিকেলে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়। শনিবার সকালে হাসপাতালের শিশু আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। চিকিৎসকদের সন্দেহ হওয়ায় তার নিপাহ ভাইরাসের পরীক্ষা করা হয়। এতে নিপাহ ভাইরাস শনাক্ত হয়। সংকটাপন্ন শিশুটিকে বাঁচানো যায়নি।

এর আগে চলতি বছরের প্রথম সপ্তাহে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এ ভাইরাসে আক্রান্ত এক নারীর মৃত্যু হয়। মৃত ওই নারী রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার মাটিকাটার বাসিন্দা ছিলেন।