মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাঁদের আন্দোলন চলবে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা পর্যন্ত ৫ দফা দাবি বাস্তবায়নে সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে দাবি বাস্তবায়িত না হলে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।
গত শনিবার রাতে বাসে করে ঢাকা থেকে বরিশালে যাচ্ছিলেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের পঞ্চম ব্যাচের শিক্ষার্থী ইসমাইল খলিল। ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার মাধবপুরে সাকুরা পরিবহনের একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগলে ইসমাইল খলিল গুরুতর আহত হন। তাঁকে উদ্ধার করে ফরিদপুরের শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল দুপুরে তিনি মারা যান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মো. খোরশেদ আলম প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছি। আজও উপাচার্য তাঁদের নিয়ে বৈঠক করেছেন। আগামীকাল সকাল ১০টায় সাকুরা পরিবহনের মালিক বিশ্ববিদ্যালয়ে আসবেন। এরপর তাঁর সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি এবং নিহত শিক্ষার্থীর পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আলোচনা হবে। সেখান থেকে এসব দাবিদাওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হবে।’