আজ শুক্রবার দুপুরে রুয়েটের ছাত্রকল্যাণ পরিচালক রবিউল আউয়াল প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গত ২৪ অক্টোবর রাত আটটার দিকে রুয়েটের অস্থায়ী মন্দিরে দীপাবলির প্রদীপ জ্বালাচ্ছিলেন মৌমিতা। তখন অসাবধানতাবশত তাঁর শাড়িতে আগুন লেগে যায়। এতে তিনি দগ্ধ হন। পরে তাঁকে তৎক্ষণাৎ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকেরা দ্রুত তাঁকে ঢাকায় শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে স্থানান্তর করেন। পরে তাঁরা সেখানে তাঁকে নিয়ে ভর্তি করেন।

রবিউল আউয়াল আরও বলেন, আগুনে মৌমিতার শরীরের ৩০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল। মাঝখানে তাঁর শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল হয়েছিল। পরে হঠাৎ মৌমিতা বেশি অসুস্থ হয়ে পড়েন। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত আনুমানিক সাড়ে আটটার দিকে মৌমিতা মারা যান। পরিবারের সদস্যরা সকালে তাঁর মরদেহ নিয়ে খুলনার উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। তাঁরা খুলনা শহরের বাসিন্দা।