এ কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সহসাংগঠনিক সম্পাদক শাহ মো. ওয়ারেছ আলী মামুন। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন জেলা বিএনপির সহসভাপতি সফিউর রহমান, সদর উপজেলা যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক শফিকুল ইসলাম, জেলা যুবদলের সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি রফিকুল ইসলাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, সদর উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক এমদাদুল হক প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, বিনা ভোটের সরকার ক্ষমতাকে পাকাপোক্ত করার জন্য পরিকল্পিতভাবে বিএনপির নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা মামলা, গুম ও খুন করে আন্দোলনকে দমন করার চেষ্টা করছে। দেশের মানুষের স্বাধীনতা নেই। কথা বলার অধিকার নেই। সাধারণ মানুষ আজ ন্যায্য বিচার থেকে বঞ্চিত। বাংলাদেশের অর্থনীতি আজ দুই ভাগে বিভক্ত। একদিকে সাধারণ মানুষ, ব্যবসায়ীরা নিঃস্ব, অসহায় ও পঙ্গু হয়ে পড়েছে, অন্যদিকে লুটপাটের মধ্য দিয়ে সরকারের এমপি-মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা কোটি কোটি টাকার মালিক বনে গিয়েছেন।

বক্তারা আরও বলেন, সরকার বিএনপি নেতা-কর্মীদের হত্যা, গুম, খুন, জুলুম নির্যাতন করে জনগণের মুক্তির আন্দোলনকে দমিয়ে রাখার চেষ্টা করছে। বুকের তাজা রক্ত দিয়ে হলেও সাধারণ মানুষের অধিকার ফিরিয়ে আনার আন্দোলনে সব নেতা–কর্মীকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান তাঁরা।

বদিউজ্জামানকে গত মঙ্গলবার দুপুরে শহরের বেজপাড়া চোপদারপাড়া এলাকায় কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। বদিউজ্জামান ওই এলাকার বাসিন্দা ছিলেন। তিনি জমি কেনাবেচার ব্যবসা করতেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন