গত ৭ নভেম্বর ফরিদপুর বাস মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের পক্ষ থেকে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারকে একটি চিঠি দেওয়া হয়। ওই চিঠিতে বলা হয়, মহাসড়কে সব ধরনের অবৈধ ত্রি-হুইলার চলাচল বন্ধের বিষয়ে দাবি জানানো হয়। চিঠিতে স্বাক্ষর করেন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক গোলাম নাসির। সংগঠনের বেঁধে দেওয়া সময় অনুযায়ী, দাবি মানার জন্য আজ দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত সময় আছে। তবে সময়সীমা শেষ হওয়ার প্রায় ১৫ ঘণ্টা আগেই বাস ও মিনিবাস বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

আজ বেলা ১১টার দিকে শহরের নতুন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, একটি ইজিবাইকের ছাদে মাইক লাগিয়ে বাস ধর্মঘটের ব্যাপারে জানানো হচ্ছে। নতুন বাসস্ট্যান্ডের সড়কটটি ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কেরই অংশ। ওই ইজিবাইকের চালক মো. রেজাউলকে (৩৬) বলেন, বাস ফরিদপুর বাস মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান তাঁকে ভাড়া করেছে মাইকিং করার জন্য। তিনি সকাল নয়টা থেকে বাস বন্ধের বিষয়ে ঘোষণাটি মাইক বাজিয়ে প্রচার করছেন। তাঁকে রাজবাড়ী রাস্তার মোড়, ভাঙ্গা রাস্তার মোড় ও পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মাইকিং করতে বলা হয়েছে।

যদিও রাজবাড়ী রাস্তার মোড় হলো ঢাকা–বরিশাল ও ঢাকা–খুলনা মহাসড়কের সংযোগস্থল। এ ছাড়া ভাঙ্গা রাস্তার মোড় ও পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এলাকা ঢাকা–বরিশাল মহাসড়কের অংশ। এ কাজের জন্য কত টাকা পাবেন জানতে চাইলে রেজাউল বলেন, ‘আমাকে টাকার কথা বলেনি। তবে তাঁদের কাজ আমিই করি। এ কাজের জন্য দিনে ১২০০ থেকে ১৫০০ টাকা তাকে দেওয়া হয়।’

সময়সীমা শেষ হওয়ার আগেই কেন ধর্মঘটের মাইকিং করা হচ্ছে জানতে চাইলে বাস মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক গোলাম নাসির বলেন, ‘আমাদের ডিসি (জেলা প্রশাসক) বা এসপি (পুলিশ সুপার) কেউ এ বিষয় নিয়ে আলোচনার জন্য আমাদের ডাকেনি। আগেও আমরা দেখেছি, সময়সীমার কথা জানালে আমরা কোনো ইতিবাচক সাড়া পাই না। তাই এবার আগে থেকেই মাইকিং শুরু করেছি, যেহেতু আমাদের বাস ধর্মঘটে যেতেই হচ্ছে।’

তবে বাস বন্ধ করে বিএনপির সমাবেশে জনসমাগম ঠেকানো যাবে না বলে দাবি করেছেন ফরিদপুর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক সৈয়দ মোদাররেছ আলী। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, সরকারি ইশারায় আলটিমেটামের সময়ের শেষ হওয়ার আগেই এই মাইকিং করা হচ্ছে। এর পেছনে সরকার প্রশাসন এবং আওয়ামী লীগের ইন্ধন রয়েছে। এটি একটি পরিকল্পিত এবং হীন কর্মকাণ্ড। তবে এ কর্মকাণ্ডে জনগণের ভোগান্তি ছাড়া আর কোনো কাজে হবে না। বিএনপির সমাবেশের আসা জনস্রোত বাস বন্ধ করে রোধ করা যাবে না।