পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, পিকআপ ভ্যানটি পানিতে ডুবে যাওয়ার আগেই চালকের সহকারী আয়ূব আলী লাফিয়ে নিজেকে রক্ষা করেন। তবে চালক জাহিদ হাসান পানিতে তলিয়ে যান। এ সময় ঘটনাস্থলের আশপাশে থাকা লোকজন দ্রুত ছুটে আসেন। তাঁরা আয়ূব আলীর দেওয়া তথ্যানুযায়ী চালককে উদ্ধারে পানিতে নামেন। একপর্যায়ে স্থানীয় লোকজন পানিতে ডুব দিয়ে মৃত অবস্থায় চালককে উদ্ধার করেন। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে।

নরসিংহপুর এলাকার বাসিন্দা শাহিন ইসলাম বলেন, পিকআপ ভ্যানটি পানিতে পড়ে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরই উদ্ধারকাজ শুরু করা হয়েছিল। প্রথমে চালককে ঘটনাস্থলের আশপাশে খোঁজাখুঁজি করা হয়েছিল। তবে সেখানে না পেয়ে পরে পানিতে ডুব দিয়ে মৃত অবস্থায় চালককে উদ্ধার করা হয়েছে।

বাগমারা থানার পরিদর্শক তৌহিদুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় নিহত ব্যক্তির পরিবারের কোনো অভিযোগ নেই। তাই পরিবারের আবেদনের ভিত্তিতে নিহত ব্যক্তির লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এই বিষয়ে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন