পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সাত বছর বয়সী ওই শিশু শিক্ষার্থী গতকাল সকালে পাঠ্যবই নিয়ে বাড়ির পাশে একটি মাদ্রাসার শ্রেণিকক্ষে প্রবেশ করে। এ সময় শ্রেণিকক্ষে অন্য কোনো শিক্ষার্থী ছিল না। সেই সুযোগে সাগর কুমার নামের এই তরুণ শ্রেণিকক্ষের ভেতর ঢুকে শিশুটিকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। তখন শিশুটির চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে পৌঁছে সাগরকে আটক করে। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতা সাগরকে গণধোলাই দিয়ে মাথার চুল কেটে ঘটনাস্থলে আটক করে রাখে। খবর পেয়ে দুপুর ১২টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাঁকে উদ্ধার করে। পরে তাঁকে ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে থানা হেফাজতে নেওয়া হয়। এ ঘটনায় শিশুটির মা গতকাল রাতে বাদী হয়ে সাগর কুমারকে আসামি করে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে মামলা করেন। মামলায় সাগর কুমারকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে শুক্রবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কৃপা সিন্ধু বালা প্রথম আলোকে বলেন, শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে করা মামলায় সাগর কুমারকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক তদন্ত ও আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন