তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগার সূত্রে জানা যায়, আজ সকাল ৯টায় তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১৮ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে তা সারা দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নয়। এর আগে গতকাল সন্ধ্যা ছয়টায় তেঁতুলিয়ায় দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ২৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
হিমালয়ের কাছাকাছি হওয়ায় পঞ্চগড় জেলায় প্রতিবছর শীতের আগমন ঘটে কিছুটা আগেভাবে। আর শীত বিদায়ও নেয় দেরিতে। হেমন্তের শুরুতে সন্ধ্যা নামলেই অনুভূত হচ্ছে শীত। রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কমতে থাকে তাপমাত্রা। এর সঙ্গে ঘন কুয়াশা জানান দিচ্ছে তীব্র শীতের আগমনী বার্তা।

আজ সকালে বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, কুয়াশায় ভিজে গেছে পিচঢালা পথগুলো। গাছের পাতা, সবুজ ধানের খেত ও ঘাসের ওপর শিশিরবিন্দু। ঘন কুয়াশার কারণে সকাল বেলা সড়কের যানবাহনগুলো চলেছে হেডলাইট জ্বালিয়ে। ঘন কুয়াশার মধ্যেই কর্মজীবী মানুষ ছুটছেন কাজের সন্ধানে। কেউ সবজি খেতে সংগ্রহ করছেন সবজি, কেউবা তা ভ্যানে বিক্রি করতে নিয়ে যাচ্ছেন বাজারে। এমনকি ঘন কুয়াশার মধ্যে শ্রমিকেরা নদীর পানিতে নেমে সংগ্রহ করছেন বালু ও নুড়িপাথর। তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ঝলমলে রোদের দেখা মেলায় খেটে খাওয়া মানুষের মধ্যে ফিরে আসে কর্মচাঞ্চল্য।

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রাসেল শাহ মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, কয়েক দিন বিরতির পর আবারও ঘন কুয়াশায় ঢাকা পড়েছে পঞ্চগড়। আজ সকালে তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৮ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। তবে দিনের বেলা রোদ ওঠায় সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ তাপমাত্রার ব্যবধান বাড়বে। বর্তমানে তেঁতুলিয়ার আকাশের আট ভাগের মধ্যে তিন ভাগ মেঘ বিরাজ করছে। এখন থেকে তেঁতুলিয়ায় দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কমতে থাকবে বলে তিনি জানান।