জয়পুরহাট জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি নৃপেন্দ্রনাথ মণ্ডল রায়ের বিষয়টি প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেন। যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা হলেন জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার সূর্যবান গ্রামের ছেলে বাবলু, আমিনুল ইসলাম ওরফে লালু, আবদুল হামিদ ও মো. কাজল। তাঁরা সবাই ক্ষেতলাল উপজেলার সূর্যবান গ্রামের বাসিন্দা।

মামলার বিবরণ সূত্রে জানা যায়, জয়পুরহাট জেলার ক্ষেতলাল উপজেলার সূর্যবান গ্রামের ওবাইদুর রহমান ২০০৮ সালের ৩ মে সকাল ৮টায় রাজমিস্ত্রির কাজে চলে যান। তাঁর স্ত্রী শিরিনা আক্তারও গৃহপরিচারিকার কাজ করার জন্য ক্ষেতলালে জাকস কার্যালয়ে চলে যান। বাড়িতে ছিল তাঁদের মেয়ে হাবিবা (১০) ও ছেলে তানভীর (৮)। কাজ শেষে ওবাইদুর ও তাঁর স্ত্রী ওই দিন সন্ধ্যা ৭টায় বাড়িতে ফিরে দেখেন, তানভীর বাড়িতে নেই। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও শিশুটির সন্ধান মেলেনি। একপর্যায়ে বাড়ির পশ্চিম পাশের পুকুর থেকে শিশু তানভীরের লাশ উদ্ধার করা হয়।

ঘটনার দিন রাতেই নিহত শিশুর বাবা ওবাইদুর রহমান বাদী হয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে ক্ষেতলাল থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ক্ষেতলাল থানার উপপরিদর্শক সিদ্দিকুর রহমান মামলাটি তদন্ত করে ২০০৮ সালের ১২ আগস্ট আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে আজ এ মামলার রায় ঘোষণা করা হলো।