সিরাজগঞ্জের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পেশকার মনোয়ার হোসেন বিষয়টি প্রথম আলোকে নিশ্চিত করে বলেন, আজ দুপুরে ইউপি চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ তাঁর আইনজীবীর মাধ্যমে আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। বিচারক শুনানি শেষে তাঁর জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ইউপি চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ, সংরক্ষিত নারী সদস্য সাহেলা বেগম ও সচিব জিয়াউল করিমের বিরুদ্ধে ২০১৮-১৯ ও ২০১৯-২০ অর্থবছরের এলজিএসপি-৩ প্রকল্পের ৩০ লাখ ১৫ হাজার ৮৪৪ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ওঠে। এ অভিযোগের পর চলতি বছরের ১৭ জানুয়ারি চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সদস্য সালেহা বেগমকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। এই প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশন পাবনা সমন্বিত কার্যালয়ের পক্ষ থেকে তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। মামলার তদন্ত শেষে গত ৫ জুলাই আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন দুদকের কর্মকর্তা।