জলসিঁড়ি পাঠাগারের প্রতিষ্ঠাতা কলেজশিক্ষক দীপক সরকার বলেন, ‘ভর্তুকি দিয়ে ১০ টাকায় প্রতিটি বই দেওয়া হয়েছে। শিশু-যুবারা সহজ মূল্যে বইটি কিনুক। তারা সম্মানবোধ করুক, এই ভেবে যে দানে নয়, বইটি তারা কিনেছে, তবু বই কেনার অভ্যাস বাড়ুক।’ তিনি আরও বলেন, এক মাস পর শিক্ষার্থীরা পাঠপ্রতিক্রিয়া লিখে জমা দেবে, তারপর পাঠপ্রতিক্রিয়া মূল্যায়ন করে পুরস্কার দেওয়া হবে। ১০ টাকায় বই বিনিময় কর্মসূচি আরও বাড়াতে দেশের বিত্তবানদের যুক্ত হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

জলসিঁড়ি পাঠাগার সূত্রে জানা যায়, দুর্গাপুরের গাভিনা গ্রামের দীপক সরকারের প্রচেষ্টায় ২০০২ সাল থেকে এলাকার কয়েকজন তরুণ মিলে জলসিঁড়ি অধ্যয়ন সভা নামে একটি সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন গড়ে তোলা হয়। এরপর ২০১২ সালে জলসিঁড়ি পাঠাগার প্রতিষ্ঠা করা হয়। প্রত্যন্ত এলাকায় প্রতিষ্ঠিত এই পাঠাগারে বর্তমানে প্রায় ১৩ হাজার বই আছে। বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী মিলে প্রতিদিন শতাধিক পাঠকের সমাগম ঘটে পাঠাগারটিতে। পাঠাগারটির প্রতিষ্ঠার পর থেকে প্রতিবছর দেশের বরেণ্য লেখক, সাংবাদিক, গবেষক, কবি, সাহিত্যিক, ভাষাসৈনিক, মুক্তিযোদ্ধা ও চিকিৎসককে সম্মাননা দেওয়া হয়েছে।