গোদাগাড়ী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম বলেন, গোদাগাড়ীর এই পাশটা ভারতের সীমান্তবর্তী। নদীর পানির স্রোতও ভারত থেকে বাংলাদেশের দিকে। ধারণা করা হচ্ছে ভারতের ওই পাশ থেকে মরদেহটি ভাসতে ভাসতে এখানে এসে ঠেকেছে। মরদেহের শরীরে কোনো মাংস নেই। গন্ধও ছিল না।

কামরুল ইসলাম আরও বলেন, মাথা ও বুকের পাঁজরের এই কঙ্কাল রাতেই উদ্ধার করা হয়েছে। পরবর্তী সময়ে এটি ময়নাতদেন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে। কঙ্কাল দেখে পরিচয় শনাক্ত করার উপায় নেই। তবে পরিচয় শনাক্তের জন্য লাশটির ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করে রাখা হবে। পরে এস কেউ ডিএনএ মিলিয়ে এটি নিতে পারবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন