পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিকেল সোয়া চারটার দিকে বসুরহাট পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ইসমাইল হোসেনকে ধরতে স্থানীয় জামাইয়েরটেক এলাকায় ঝটিকা অভিযান চালান কোম্পানীগঞ্জ থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) রবিউল ইসলামসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্য। তাঁরা গাঁজাসহ হাতেনাতে ইসমাইলকে আটক করে হাতকড়া পরান। এ সময় ইসমাইলের সহযোগী নারী-পুরুষেরা এসে তাঁকে ছাড়িয়ে নিতে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে লিপ্ত হন।

সূত্র জানায়, ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে এক নারী পুলিশের হাতে কামড় দিয়ে হাতকড়াসহ ইসমাইলকে ছিনিয়ে নিয়ে যান। ঘটনার পর অতিরিক্ত পুলিশ এসে ইসমাইলকে ধরতে অভিযানে নামে। রাত আটটায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তাঁকে আটক করা যায়নি। এ সময় ইসমাইলের কয়েকজন স্বজনকে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে গেছে বলে স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে।

এএসআই রবিউল ইসলাম হাতকড়াসহ মাদক মামলার আসামি পালিয়ে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাদেকুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, নারীরা পুলিশের হাতে কামড় দিয়ে হাতকড়াসহ আসামি ইসমাইল হোসেনকে ছিনিয়ে নিয়ে যান। পলাতক ইসমাইলকে ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আকরামুল ইসলাম বলেন, কোম্পানীগঞ্জে পুলিশের কাছ থেকে হাতকড়াসহ মাদক মামলার আসামি ছিনিয়ে নেওয়ার প্রাথমিক তথ্য তিনি জেনেছেন। নিজেই তিনি কোম্পানীগঞ্জ যাচ্ছেন।

পুলিশ জানায়, ইসমাইল দীর্ঘদিন ধরে বসুরহাট পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডে মাদকের ব্যবসা করেন। তাঁর বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।