জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক সরদার রাশেদ মোবারক প্রথম আলোকে বলেন, রোগীর স্বজনের সঙ্গে আসা শিশুরা ওয়ার্ডের ভেতরে ঘোরাঘুরি করে। এ কারণে ওয়ার্ডে ফাঁকা জায়গায় গ্রিল দিয়ে ঘিরে শিশুদের জন্য কর্নার করে দেওয়া হয়েছে। তারা সেখানে গিয়ে খেলাধুলা করতে পারছে।

গত শনিবার দুপুরে হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, ওই শিশু কর্নারে চার শিশু রাইডগুলোয় চড়ছে। এ সময় এক নারী তাঁর ছোট্ট মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে একজন রোগীকে দেখতে ওয়ার্ডে আসেন। এরপর শিশুটিকে রাইডে চড়তে পাঠিয়ে তিনি রোগীর কাছে চলে যান।

শিশু কর্নারে খেলতে থাকা হাবিবা (৮) খাতুন প্রথম আলোকে বলে, ‘আমার দাদুর পায়ে অসুখ। আম্মুর সঙ্গে দাদুকে দেখতে হাসপাতালে এসেছি। আম্মু দাদুর কাছে বসে আছে। আমি খেলাধুলা করছি। আমাকে খুব ভালো লাগছে।’

চার দিন ধরে মায়ের সঙ্গে হাসপাতালে আছে শিশু সজীব হোসেন (৫)। সে বলে, যখন ইচ্ছা শিশু কর্নার ভেতরে ঢুকে খেলাধুলা করতে পারায় তার ভালো লাগছে।

পাঁচবিবি উপজেলার হরেন্দা গ্রামের বৃদ্ধ খলিলুর রহমান বলেন, ‘এক সপ্তাহ ধরে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছি। শিশুরা আমার সামনে খেলাধুলা করে। এ দৃশ্য দেখতেও ভালো লাগে।’

জয়পুরহাট একুশে আবৃত্তি পরিষদের সভাপতি রাজা চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, ‘এটি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের একটি ভালো উদ্যোগ। আমরা এ উদ্যোগকে স্বাগত জানাই।’