এরপর তালাইমারী থেকে আলুপট্টি সড়কের পাশাপাশি বিমান চত্বর থেকে বিহাস পর্যন্ত এবং বহরমপুর রেলক্রসিং থেকে কাশিয়াডাঙ্গা সড়কে নতুন নিয়মে সড়কবাতি জ্বালানো হয়। অর্থাৎ সড়কগুলোতে প্রতি দুটি খুঁটির পর একটিতে আলো জ্বলছে।

এ সময় খায়রুজ্জামান সাংবাদিকদের বলেন, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারা বিশ্বে জ্বালানিসহ ডলারের সংকট দেখা দিয়েছে। এ জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সব বিষয়ে সাশ্রয়ী হওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন। এর অংশ হিসেবে রাজশাহী শহরের সড়কগুলোতে প্রতি দুটি খুঁটির পর একটিতে আলো জ্বলবে। আর বাঁধের ওপরে যেসব বাতি রয়েছে, সেগুলো রাত ১১টার পর বন্ধ হয়ে যাবে। এতে রাজশাহীর জন্য কিছুটা হলেও বিদ্যুৎ সাশ্রয় হবে।

এ সময় রাজশাহী সিটি করপোরেশনের পানি ও বিদ্যুৎ স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ২৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তরিকুল আলম, নির্বাহী প্রকৌশলী আসাদুজ্জামান, উপসহকারী প্রকৌশলী আসাদুল ইসলাম, উপসহকারী প্রকৌশলী তানভীর হাসান, উপসহকারী প্রকৌশলী কামাল পারভেজ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন