স্থানীয় সূত্র জানায়, সিলেটে বিএনপির সমাবেশ সফল করতে বানিয়াচং উপজেলা বিএনপি গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় এলআর উচ্চবিদ্যালয় মাঠে এক সভা আয়োজন করে। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে গিয়ে বাধা দেয়। এ নিয়ে নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের বাগ্‌বিতণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের শেল ও পাঁচটি ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে।

পুলিশ সূত্র জানায়, গতকাল রাতে বিএনপির নেতা–কর্মীদের হামলায় বানিয়াচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অজয় চন্দ্র দেব, উপপরিদর্শক (এসআই) আতিক, কনস্টেবল বাবুল, বাদশা ও দেলোয়ার আহত হন। তাঁরা বানিয়াচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নেন। এ ঘটনায় আজ বুধবার রাতে বানিয়াচং থানায় মামলা হয়। ৩২ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত শতাধিক ব্যক্তিকে আসামি করে মামলাটি করা হয়েছে।

বিএনপি সিলেট বিভাগের দায়িত্বরত সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হাসান বলেন, সিলেটে বিএনপির গণসমাবেশ যাতে সফল না হয়, সে জন্য পুলিশ মিথ্যা মামলা দিয়ে দলের নেতা–কর্মীদের হয়রানি করছে। এ ঘটনায় উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহির খানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বানিয়াচং থানার ওসি অজয় চন্দ্র দেব বিএনপি নেতা–কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।