বিএনপির মহাসচিব আবারও বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে দেশে আর কোনো নির্বাচন হবে না। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বলেছেন, ভোটের মাধ্যমে যে সরকার হবে সেটি হবে সব দলের সমন্বয়ে জাতীয় সরকার।

আওয়ামী লীগ বর্গিদের মতো আচরণ করছে অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ২০০৮ সালে শেখ হাসিনা বলেছিলেন নির্বাচনে জয়ী হলে ১০ টাকা কেজি চাল খাওয়াবেন, ঘরে ঘরে একজনকে চাকরি দেবেন। এখন চালের দাম কত? ঘরে ঘরে চাকরি কি হয়েছে? তাঁর অভিযোগ, এই দলের চরিত্রে দুটি দিক আছে। চুরি ও সন্ত্রাস। তারা  যখনই ক্ষমতায় এসেছে ভোট চুরি করে এসেছে। এখন আবার ভোট চুরি করে ক্ষমতায় যাওয়ার ফন্দি করছে।

বরিশালে বিভাগীয় গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে বাস, লঞ্চ, ছোট যানবাহন বন্ধ করে দেওয়ায় কার্যত সারা দেশ থেকে বরিশাল ছিল বিচ্ছিন্ন। শনিবার সকাল থেকে বরিশালের মুঠোফোন ও ইন্টারনেট ব্যবস্থা ছিল ধীর গতির, কখনো কখনো সংযোগ পাওয়া যাচ্ছিল না। এই পরিস্থিতির মধ্যে মাছ ধরার ট্রলার, পণ্যবাহী নৌযান, সাইকেল এমনকি হেঁটে বিভাগের জেলা ও উপজেলা থেকে অসংখ্য নেতা-কর্মী সমাবেশে যোগ দেন।

যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ করার আশঙ্কায় গত বুধবার থেকেই এই সমাবেশে দূর-দূরান্তের লোকজন সমাবেশস্থলে আসেন। সেখানে তিন দিন ধরে ছিলেন তাঁরা। এরপর বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার বাধা-বিপত্তি উপেক্ষা করে বাড়তে থাকে উপস্থিতি।

আজকের গণসমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, মঈন খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান, কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান শাহজাহান ওমর, হাফিজ উদ্দীন আহেমদ, আবদুল আউয়াল মিন্টু, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, জয়নুল আবেদীন, যুগ্ম মহাসচিব মজিবর রহমান সরোয়ার, হাবিব উন নবী খান সোহেল প্রমুখ।