বিনয়ের ছেলে বিশ্বজিৎ কুমার মণ্ডল বলেন, গত শনিবার সকাল থেকে বিলদুবলা গ্রামে নিজেদের জমিতে বাবার সঙ্গে তিনি ধান কাটার কাজ করছিলেন। ওই দিন দুপুর ১২টার দিকে তফসের আলী ও তফসেরের ছেলে তারেক এসে তাঁর বাবাকে ডেকে নিয়ে যান। তবে দীর্ঘ সময় পার হলেও তাঁর বাবা ফিরে না আসায় তিনি তফসের আলীর বাড়িতে খোঁজ নিতে যান। দফায় দফায় সেখানে গিয়েও তাঁর বাবার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। পরে গতকাল রোববার রাতে তিনি মান্দা থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। আজ সকালে স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন, দুর্গাপুর গ্রামের জুয়েল রানার বাড়িসংলগ্ন একটি ধানখেতে তাঁর বাবার লাশ পাওয়া গেছে।

মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নূর-এ-আলম সিদ্দিকী বলেন, ঘটনাস্থল থেকে বিনয় মণ্ডলের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। এ ঘটনায় একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে। নিহত ব্যক্তির শরীরে আঘাতের তেমন কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি। এটি হত্যাকাণ্ড কি না, সেটা এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে তাঁর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।