আহত জেলেরা সাংবাদিকদের বলেন, গতকাল রাতে আব্বাস মাঝিসহ ছয় জেলে মেঘনায় মাছ শিকারে যান। রাত সাড়ে ১২টার দিকে নদীতে জাল ফেলার প্রস্তুতি নেওয়ার সময় দূর থেকে দস্যুরা ওই জেলে নৌকায় গুলি ছোড়ে। এতে তিন জেলে গুলিবিদ্ধ হন। এর মধ্যে আব্বাস ও ইউসুফের বাঁ হাতে গুলি লাগে। এ ছাড়া ফারুকের ডান পায়ের ঊরুতে ও ডান হাতে গুলি লেগেছে। এ সময় নৌকা থেকে মহিউদ্দিন নামের এক জেলেকে ধরে নিয়ে যায় দস্যুরা।

খবর পেয়ে রাত দুইটার দিকে কমলনগর উপজেলার লুধুয়া মৎস্যঘাট এলাকার আড়তদারেরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাঁদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক এ কে আজাদ বলেন, গতকাল ভোররাতে তিনজন গুলিবিদ্ধ রোগী এসেছেন। তাঁদের ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

বড়খেরী নৌ পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক (ইনচার্জ) ফেরদৌস আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, মেঘনা নদীতে তিন জেলে গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর পেয়েছেন। ওই নৌকা থেকে এক জেলেকে অপহরণের পর আবার দস্যুরা ছেড়ে দিয়েছে বলেও তিনি শুনেছেন। তবে এ বিষয়ে এখনো কোনো লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করবে।