বরকতউল্লাহ বলেন, স্বৈরাচার শেখ হাসিনা সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করতে হবে। এই সরকারের আমলে কেউ স্বস্তিতে নেই। কুমিল্লার সমাবেশ প্রমাণ করে দেবে, দেশের জনগণ আওয়ামী লীগকে আর চায় না।

কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আখতারুজ্জামান সরকারের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক মিয়া। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য শাহেদা রফিক, বিএনপির গণশিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক সেলিম ভূঁইয়া, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেনের ছেলে খন্দকার মারুফ হোসেন। সভা সঞ্চালনা করেন কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপির সদস্যসচিব এ এফ এম তারেক মুন্সী।

কুমিল্লাকে বিএনপির ঘাঁটি উল্লেখ করে সভায় দলীয় নেতারা বলেন, কুমিল্লায় ২৬ নভেম্বর জনস্রোত বয়ে যাবে। দলের নেতা-কর্মীদের বাধাবিপত্তি মোকাবিলা করে টাউন হল মাঠে মিলিত হতে হবে।