মামলায় আসামি করা হয় আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ডিএসএসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক দিলারা বেগমকে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক।

মামলার এজাহারের বরাত দিয়ে সুমন বণিক প্রথম আলোকে বলেন, চীনের একটি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান থেকে ‘সোডা অ্যাশ লাইট’ নামে একটি পণ্যের আমদানি করার ঘোষণা দিয়েছিল আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ডিএসএস। একটি কনটেইনারে ১৯ হাজার ৭০০ কেজি পণ্য আমদানির পর সীতাকুণ্ডের কুমিরা ইউনিয়নের নেমসন কনটেইনার ডিপোতে আনে প্রতিষ্ঠানটি।

রপ্তানিকারক, তৈরি দেশ, আমদানিকারক ও তার ব্যবসার ধরন ইত্যাদি বিশ্লেষণ করে কনটেইনারের তথ্যের সঙ্গে আমদানি তথ্যের গড়মিল পায় চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের পোর্ট কন্ট্রোল ইউনিট। ফলে গত ২৫ মে কনটেইনারটি জব্দ করা হয়। পরে পরীক্ষা–নিরীক্ষার পর ৭৪৮ বস্তা সোডিয়াম সাইক্ল্যামেট ও ৪০ বস্তা ক্যালসিয়াম কার্বনেট পায় তারা। সোডিয়াম সাইক্ল্যামেট বাংলাদেশে নিষিদ্ধ পণ্য হওয়ায় কাস্টম কর্তৃপক্ষ গতকাল ওই মামলা করে।

পরিদর্শক সুমন বণিক আরও বলেন, মামলাটি তদন্ত করছে পুলিশ। তাদের প্রাথমিক কাজ নিষিদ্ধ পণ্যসহ জব্দ করা কনটেইনারটি পুলিশ জব্দ করবে। এরপর তদন্ত করে দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন