অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করেন বান্দরবান বন্ধুসভার সদস্যরা। বান্দরবান বন্ধুসভার বন্ধু মো. মঈনুদ্দিন রাজু ও সূচনা বড়ুয়ার সঞ্চালনায় এরপর মঞ্চে স্বাগত বক্তৃতা দেন প্রথম আলোর বান্দরবান প্রতিনিধি বুদ্ধজ্যোতি চাকমা।

উৎসব আয়োজনে অংশ নিতে লামার আজিজনগর থেকে এসেছে দুই বান্ধবী নাহিদা আক্তার ও নাজিফা জান্নাত। তারা জানায়, খুব সকালে এ আয়োজনে চলে এসেছে তারা, যাতে কোনো আনন্দ বাদ না যায়।

রোয়াংছড়ি থেকে আসা উসাইহ্লা মারমা বলে, ‘আমি এখন বান্দরবান শহরের একটি কলেজে ভর্তি হয়েছি। অনেক বন্ধু ভর্তি হয়েছে চট্টগ্রাম ও ঢাকার বিভিন্ন কলেজে। উৎসবে এসে অনেক দিন পর বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হলো।’

বান্দরবান শহরের একটি বিদ্যালয় থেকে জিপিএ–৫ পেয়েছে কিশোর কুমার দাশ। তার ভাষ্য, এ উৎসবে এসে তার দারুণ লাগছে। এখানে এসে বিভিন্ন এলাকার বন্ধুদের সঙ্গে বড় পরিসরে মেশার সুযোগ হলো। এ ছাড়া নতুন অনেকের সঙ্গে পরিচয় হচ্ছে।

দিনব্যাপী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের জন্য থাকছে ক্রেস্ট, সার্টিফিকেট, প্রথম আলো ই-পেপার (১ মাস) ও চরকির (১৫ দিন) ফ্রি সাবস্ক্রিপশন, শিখোর সৌজন্যে বিনা মূল্যে কোর্স এবং ফ্রেশের সৌজন্যে সকালের নাশতা।

বান্দরবানের শিক্ষার্থীদের দিকনির্দেশনা দিতে উৎসব প্রাঙ্গণে উপস্থিত আছেন বান্দরবানের প্রবীণ গুণীজন শ্যামল বড়ুয়া, বান্দরবান ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের কো-অর্ডিনেটর মো. ইয়াকুব, বান্দরবান সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ের জ্যেষ্ঠ শিক্ষক আমিনুর রহমান প্রামাণিক ও দীলিপ কুমার নাথ, শিক্ষক মেহেদী হাসান, জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী থোয়াইচিংপ্রু নীলু মারমা, বান্দরবান বন্ধুসভার উপদেষ্টা রাজেশ দাশ, প্রথম আলোর চিফ স্পোর্টস এডিটর উৎপল শুভ্র প্রমুখ।