জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শামসুল আলম প্রথম আলোকে বলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁসে জড়িত থাকার অভিযোগে ভূরুঙ্গামারী উপজেলাধীন নেহাল উদ্দিন পাইলট বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের ছয়জন শিক্ষক-কর্মচারীর এমপিও স্থগিত করা হয়েছে। একই সঙ্গে খণ্ডকালীন এক শিক্ষককে বরখাস্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক নেহাল আহমেদের গত ১ নভেম্বরের সই করা আদেশে এসব নির্দেশনা দেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার এ আদেশ তাঁদের কাছে পৌঁছেছে।

শিক্ষক–কর্মচারীরা হচ্ছেন নেহাল উদ্দিন পাইলট বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লুৎফুর রহমান, ইংরেজি বিষয়ের সহকারী শিক্ষক মো. আমিনুর রহমান, কৃষি বিষয়ের সহকারী শিক্ষক মো. হামিদুর রহমান, বাংলা বিষয়ের সহকারী শিক্ষক মো. সোহেল আল মামুন, অফিস সহকারী মো. আবু হানিফ এবং চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী মো. সুজন। এ ছাড়া একই বিদ্যালয়ের ইসলাম ধর্ম বিষয়ের খণ্ডকালীন সহকারী শিক্ষক জুবাইর হোসাইনকে বরখাস্ত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ভূরুঙ্গামারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা সাজ্জাদ হোসেন বলেন, আলোচিত প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় শিক্ষা বিভাগ দুই দফা তদন্ত করেছে। সেই তদন্ত প্রতিবেদনের আলোকে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের সাত দিনের সময় দিয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। নোটিশের জবাব পাওয়ার পর মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ এ আদেশ দেন।