বাদী মামলায় উল্লেখ করেন, তিনি ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের বাসিন্দা। গত বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে পাগলা বৈরাগীবাড়ি এলাকায় তাঁর বান্ধবীর বাড়িতে বেড়াতে যান তিনি। পরদিন রাতে বান্ধবীর বাড়ির পাশের দোকান থেকে খাবার কিনতে গেলে মামলার তিন আসামি তাঁর গলায় ছুরি ধরে শাওনের বাসায় নিয়ে যান। সেখানে তাঁকে ধর্ষণ করেন। একপর্যায়ে তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। রাত একটার দিকে তাঁর জ্ঞান ফিরলে তাঁকে বাসা থেকে বের করে দেন তাঁরা।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিজাউল হক বলেন, এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার তরুণী বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেছেন। ওই নারীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন