সোনার বারসহ আটক মনোরঞ্জন দাস বলেন, ‘এক সপ্তাহ আগে আমি হিলি সীমান্ত দিয়ে চারটি সোনার বার নিয়ে ভারতে গিয়েছিলাম। আজ আবারও চারটি বার নিয়ে চেকপোস্ট পার হতেই ডিবি পুলিশ আমাকে ধরে ফেলে।’

হিলি শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগের সুপারিনটেনডেন্ট সোয়েব রায়হান প্রথম আলোকে বলেন, হিলি চেকপোস্ট দিয়ে কয়েকজন যাত্রী শরীরে করে গোপনে সোনা পাচার করছেন—এমন সংবাদের ভিত্তিতে চেকপোস্টে সন্দেহভাজন দুজনকে আটক করা হয়। তাঁদের শরীর তল্লাশি করে বিশেষ কায়দায় রাখা ১০টি সোনার বার উদ্ধার করা হয়। পরে ওই দুজনের স্বীকারোক্তিতে তাঁদের আরও তিন সহযোগীর দেহ তল্লাশি করে ১৪টি সোনার বার উদ্ধার করা হয়েছে। এসব সোনা জব্দ করা হয়েছে। যার ওজন ২ কেজি ৪ গ্রাম। এসব সোনার বারের আনুমানিক মূল্য ২ কোটি ৪০ লাখ টাকা। আটক ব্যক্তিদের বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।