পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানায়, সোমবার সন্ধ্যায় বারিয়ারহাট বাজারে যাওয়ার সময় চিনকিরহাট বাজারে দুর্বৃত্তদের চুরিকাঘাতে গুরতর আহত হন শহিদুল ইসলাম। স্থানীয় লোকজন প্রথমে তাঁকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর তাঁকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। রাত ৯টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. কামরুজ্জামান বলেন, যুবলীগ কর্মী শহিদুল ইসলাম খুন হওয়ার কথা শুনেছেন। তবে তাঁকে কারা কেন খুন করেছে, সে বিষয়ে কিছু জানেন না।

জোরারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. নুর হোসেন মামুন প্রথম আলোকে বলেন, শহিদুল ইসলামের শরীরের বিভিন্ন অংশে এলোপাতাড়ি কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পূর্বশত্রুতার জেরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারে। এ খুনের ঘটনায় তদন্তের পাশাপাশি জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন