স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) জুড়ী উপজেলা কার্যালয় সূত্র জানায়, ওই সেতুর কাজ পেয়েছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘মেসার্স মনির ট্রেডার্স’। ওই প্রতিষ্ঠানের মালিক ভোলা পৌরসভার মেয়র ও ভোলা জেলা যুবলীগের সভাপতি মোহাম্মদ মরিুজ্জামান ওরফে মনির। তিনি আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ এক নেতার ভাগনে। এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে একাধিকবার তাঁর মুঠোফোনে কল করা হলেও তিনি ধরেননি।

এলজিইডি সূত্র আরও জানায়, এলজিইডির উদ্যোগে ২০২০ সালের ২৬ অক্টোবর সেখানে ৬০ মিটার দীর্ঘ বৃন্দারঘাট সেতুর নির্মাণকাজের অনুমোদন দেওয়া হয়। ৪ কোটি ৩০ লাখ টাকার এ কাজটি পায় ভোলার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘মেসার্স মনির ট্রেডার্স’।

২০২১ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর সেতুর নির্মাণকাজ সম্পন্ন হওয়ার কথা ছিল। অথচ এ পর্যন্ত কাজ সম্পন্ন হয়েছে মাত্র ৩৫ শতাংশ। এদিকে প্রায় পাঁচ মাস ধরে কাজ বন্ধ। এ অবস্থায় কাজ বাতিলের সুপারিশ করে গত ২২ সেপ্টেম্বর এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলী ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে একটি চিঠি পাঠান।

তবে আজ এলজিইডি জুড়ী উপজেলা কার্যালয়ের প্রকৌশলী ননী গোপাল দাস প্রথম আলোকে বলেন, ঠিকাদারের (মনিরুজ্জামান) সঙ্গে তাঁদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের যোগাযোগ হয়েছে। দ্রুত সেতুর কাজ শুরু করা হবে বলে ঠিকাদার জানিয়েছেন।

এদিকে আজ বেলা ১১টার দিকে স্থানীয় ভরাডহর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের মাঠে ‘কয়লারঘাট সেতুর’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সোনিয়া সুলতানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সাগরনাল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন আহমদ।

এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ মোঈদ, এলজিইডির মৌলভীবাজার জেলা কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী আজীম উদ্দীন সরদার, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের সদস্য বদরুল ইসলাম,  উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রিংকু রঞ্জন দাস প্রমুখ।

পরে মন্ত্রী স্থানীয় গোয়ালবাড়ী ইউনিয়নের রত্না চা-বাগান প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত ‘কৃষক সমাবেশে’ প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন।