পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কোম্পানীগঞ্জের জাহিদ হোসেন তাঁর বন্ধু ও ব্যবসায়িক অংশীদার কবিরহাট পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা রাকিবের সঙ্গে মিলে কবিরহাট উপজেলার ঘোষবাগ এলাকায় মুরগির খামার করেছিলেন। গতকাল সকাল নয়টার দিকে রাকিব খামারে এসে দেখেন যে জাহিদ নেই। তখন তিনি জাহিদের স্ত্রীর কাছে ফোন করে জানতে পারেন তিনি বাড়িতেও যাননি। পরে তিনি খামারের কাজে ব্যস্ত থাকেন।

রাকিব পুলিশকে বলেছেন, গতকাল রাত ১০টার দিকে তিনি খামার এলাকার একটি পুকুরের কিনারে জাহিদের লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। তাৎক্ষণিক তিনি স্থানীয় ঘোষবাগ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানকে ঘটনাটি জানান। পরে খবর পেয়ে কবিরহাট থানার পুলিশ রাত ১২টার দিকে ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে।

কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরিকালে উদ্ধার করা লাশের শরীরে কোনো ধরনের আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়নি। পরিবারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ করা হয়নি। তাই মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হতে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন পাওয়া গেলে মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

ওসি আরও বলেন, এ ঘটনায় জাহিদ হোসেনের ব্যবসায়িক অংশীদার রাকিবকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন