স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কালকিনি উপজেলার আলীনগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) বর্তমান চেয়ারম্যান শাহীদ পারভেজ ও সাবেক চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান ওরফে মিলনের মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এই নিয়ে দুইজনের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে প্রায়ই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটছে। এরই জেরে আজ সকালে ফাঁসিয়াতলা এলাকায় দুই পক্ষের লোকজন দেশি অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামীম হোসেনসহ একদল পুলিশ। এ সময় উভয় পক্ষের লোকজন বেশ কয়েকটি ককটেল ও হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটান। এতে ওসি শামীম হোসেন, এক পুলিশ সদস্যসহ উভয় পক্ষের আরও ১০ জন আহত হন। আহত শামীম হোসেনকে উদ্ধার করে প্রথমে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পরে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শেষে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ওসিকে রাজধানীর জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান (নিটোর) পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মাদারীপুরের কালকিনি থানার ওসি মো. শামীম হোসেন বলেন, দুই পক্ষের সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে বোমা ছুড়ে মারে দুর্বৃত্তরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে তাদের হামলায় তিনিসহ দুজন আহত হন।

এ বিষয়ে মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক রহিমা খাতুন বলেন, সাবেক ও বর্তমান চেয়ারম্যানের দুই পক্ষের লোকজন এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটান। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের আইনের আওতায় আনা হবে।

এ সম্পর্কে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) চাইলাউ মারমা প্রথম আলোকে বলেন, ‘ওসি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গিয়ে হাতবোমার আঘাতে আহত হন। তাঁর ডান পায়ের হাঁটুর নিচে বোমার স্প্লিন্টারের আঘাত থাকায় তাঁকে ঢাকা নেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ চারজনকে আটক করেছে। যারা এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত, তাদের ধরতে ওই এলাকায় পুলিশের অভিযান চলছে।’