তুরস্কের রাষ্ট্রদূত আরও বলেন, বাংলাদেশ দ্রুত উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছে। অর্থনৈতিক, সামাজিক, রাজনৈতিক বিষয়সহ প্রতিটি ক্ষেত্রে তুরস্ক ও বাংলাদেশ পরস্পরের পাশে থাকবে। বাংলাদেশে ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার ও অর্থনৈতিক বিনিয়োগেও তুরস্ক সব সময় উদার নীতিতে চলছে।

বাংলাদেশিদের আতিথেয়তার কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘আগে ভাবতাম তুরস্ক সবচেয়ে বেশি অতিথিপরায়ণ। কিন্তু বাংলাদেশে আসার পর সেই ধারণা মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। বিশ্বজুড়ে বাংলাদেশ সেরা অতিথিপরায়ণ দেশ।’

বগুড়ার বেসরকারি টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ ও রফাতুল্লাহ্ কমিউনিটি হাসপাতালে সংকটাপন্ন রোগীদের বাঁচাতে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে আটটি ভেন্টিলেটর উপহার দিয়েছে তুরস্ক। বাংলাদেশ ও তুরস্কের মধ্যে ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্কের বন্ধন আরও সুদৃঢ় করতে এই উপহার দেওয়া হয়। আজ তুরস্কের রাষ্ট্রদূত টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ ও রফাতুল্লাহ কমিউনিটি হাসপাতাল প্রশাসনের হাতে উপহারের ভেন্টিলেটর হস্তান্তর করেন।

এর আগে দুপুর ১২টার দিকে টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ ও রফাতুল্লাহ হাসপাতাল মিলনায়তনে হাসপাতাল প্রশাসন ও চিকিৎসকদের পক্ষ থেকে তুরস্কের রাষ্ট্রদূতকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানো হয়। অনুষ্ঠানে মেডিকেল কলেজের শিক্ষক-চিকিৎসকেরা উপস্থিত ছিলেন।

টিএমএসএসের নির্বাহী পরিচালক হোসনে আরা বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ইসলামিক ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (রেসিডেন্ট কান্ট্রি হেড) নাসিস সোলায়মান এবং টার্কিশ কো–অপারেশন অ্যান্ড কো–অর্ডিনেশন এজেন্সির কো–অর্ডিনেটর সেভকি মার্ট বারিস প্রমুখ। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে টিএমএসএসের উপনির্বাহী পরিচালক মতিউর রহমান বক্তব্য দেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন