এ ঘটনায় মতলব উত্তর থানায় দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছে। একটি মামলা করেছেন আহত শরিফুলের ভাই কামাল হোসেন। তিনি ওই গ্রামের জয়নাল আবেদীনসহ আটজনকে আসামি করে মারামারি ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মামলা করেছেন। অপর মামলাটি করেছেন জয়নাল আবেদীন। তিনি শরিফুল ইসলামসহ পাঁচজনকে আসামি করে মামলা করেছেন।

উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে ঢাকার জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল) পাঠানো হয়েছে।

আহত শরিফুল ইসলামের পরিবার জানায়, পূর্বশত্রুতার জেরে আজ বেলা ১১টার দিকে ওই গ্রামে শরিফুলের সঙ্গে জয়নাল আবেদীন ও তাঁর লোকজনের কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে জয়নাল ও তাঁর লোকজন লোহার রড ও দা দিয়ে শরিফুলের ওপর হামলা চালান এবং তাঁর ডান হাতের কবজি কেটে প্রায় বিচ্ছিন্ন করেন। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে ঢাকার জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে ভর্তি করেন পরিবারের সদস্যরা।

তবে অভিযুক্ত জয়নাল আবেদীন দাবি করেছেন, শরিফুলই তাঁদের ওপর হামলা চালিয়েছেন। তাঁরা আত্মরক্ষা করেছেন মাত্র।

মতলব উত্তর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ শাহজাহান কামাল বলেন, এ ঘটনায় থানায় দুই পক্ষ পাল্টাপাল্টি মামলা করেছে। এ ব্যাপারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন