উপাচার্য বলেন, ‘আমাদের এখানে ৫ হাজার ৮১৪ জন ভর্তি পরীক্ষা দেওয়ার জন্য এই কেন্দ্রকে পছন্দ করেছে। এ ইউনিটের (বিজ্ঞান) পরীক্ষায় এখানে ৩ হাজার ৩২২ পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে। এতে আমরা ধারণা করছি, প্রায় ৭ থেকে ৮ হাজার মানুষ নতুন করে পরীক্ষার দিন একসঙ্গে সমবেত হবেন। ফলে এখানে একটা বড় রকমের যানজট দেখা দেওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। আমরা চাই, পরীক্ষার্থীসহ সবাই যেন নির্বিঘ্নে চলাচল করতে পারেন।’

শাহ্ আজম বলেন, পরীক্ষার্থী ও তাঁদের অভিভাবকেরা অনেকেই পরীক্ষার আগের দিন শাহজাদপুরে আসবেন। এতে তাঁদের আবাসন–সংকট তৈরি হবে। দুটি চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। স্থানীয় সরকারি প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, হাইওয়ে পুলিশ, পৌরসভার মেয়র, পরীক্ষার হল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। সবাই সর্বাত্মক সহযোগিতার কথা জানিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গত বছর থেকে বাংলাদেশে একটি নতুন রীতি চালু হয়েছে। ২০টি বিশ্ববিদ্যালয় একত্রে সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সমন্বয়ে গুচ্ছভিত্তিক সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা আয়োজন করে আসছে। গত বছরেও রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় ২০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে যুক্ত ছিল।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন