মো. অনিক সুবর্ণচরের চর জব্বর ইউনিয়নের চর হাসান গ্রামের মো. মুরাদ হোসেনের ছেলে ও কাউছার মাহমুদ চাটখিলের মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের কাঁকড়াপাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে। নিহত কাউছার চাটখিল মাহবুব ডিগ্রি কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল রাতে নিজ বাড়ি থেকে মো. অনিককে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরে পরিবারের লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানকার চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। অনিকের পরিবারের দাবি, পারিবারিক কলহের জেরে অনিক আত্মহত্যা করেছেন।

এদিকে গতকাল দুপুরে কাউছার মাহমুদের পরিবারের লোকজন আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যান। কাউছার মাহমুদ তখন বাড়িতে একাই ছিলেন। বিকেলের দিকে কাউছার মাহমুদের চাচাতো বোন জানালা দিয়ে কাউছারের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে।

চাটখিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন ও চর জব্বর থানার ওসি দেবপ্রিয় দাস প্রথম আলোকে জানান, উভয় ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। লাশ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালীর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন