নৌকার মালিকপক্ষ ও নৌ পুলিশ সূত্র জানায়, গত ২৪ জুলাই সকালে ছয়জন নিয়ে আনোয়ারা উপজেলার পরুয়াপাড়া এলাকার সাত্তার মাঝির ঘাট থেকে সাগরে মাছ ধরতে যায় সিরাজুল ইসলামের মালিকানার একটি নৌকা। ২৬ জুলাই ভোররাতে মাছ শিকার শেষে মাঝিমাল্লাদের কেউ কেউ ঘুমিয়ে পড়েন। এ সময় বরিশালগামী একটি পণ্যবাহী লাইটার জাহাজের ধাক্কায় মাছ ধরার নৌকাটি ডুবে যায়। নৌকায় থাকা চার জেলে সাঁতরে অন্য একটি নৌকায় উঠতে সক্ষম হলেও মাঝি হারুন ও আবদুর রশিদ নিখোঁজ হন। পরে ওই দিন বিকেলে আবদুর রশিদের লাশ সাগরে ভাসমান অবস্থায় পাওয়া যায়। এ ঘটনার প্রায় এক সপ্তাহ পর মহেশখালী থেকে হারুনের লাশ উদ্ধার হলো।

নৌকার মালিক সিরাজুল ইসলাম বলেন, মহেশখালী থেকে হারুনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল রাতেই লাশ বুঝে নেওয়া হয়েছে।

আনোয়ারা বার আউলিয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ নাসির উদ্দিন বলেন, বিকেলে মাতারবাড়ী সমুদ্রসৈকতে স্থানীয় লোকজন একটি লাশ ভাসতে দেখেন। পরে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যদের সহযোগিতায় লাশটি উদ্ধার করা হয়। গতকাল রাতে হারুনের পরনের কাপড় দেখে তাঁর পরিবারের লোকজন লাশের পরিচয় শনাক্ত করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন