শিশুটির স্বজন ও প্রতিবেশীরা জানান, শিশু সৌরভের বাবা বিজয় হালদার তরা এলাকায় মাছের আড়তে ব্যবসা করেন। আজ সকালে বাড়ির উঠানে খেলা করছিল সৌরভ। শিশুটির বাবা আড়তে ছিলেন। সকালের খাবার খাওয়ার সময় শিশুটি বাড়ির পাশে খালপাড়ে হিজলগাছের কাছে যায়। তবে মা বিষয়টি খেয়াল করেননি। পরে শিশুটিকে বাড়িতে না পেয়ে স্বজন ও প্রতিবেশীর বাড়িতে খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন। বেলা ১১টার দিকে বাড়ির পাশে হিজলগাছের নিচে খালে শিশু সৌরভের লাশ ভাসতে দেখেন প্রতিবেশীরা। শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

বেলা ২টার দিকে ওই বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, শিশুটির মা আহাজারি করছিলেন। বলছিলেন, ‘আমি ক্যান আমার মানিক রে কাছে নিয়ে ভাত খাইলাম না…। সব সময় ওরে চোখে চোখে রাহি, কেমনে যে পানিত গেল!’

জেলা পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের সহসভাপতি মাঝিপাড়ার বাসিন্দা ভোলা হালদার বলেন, স্বজনদের অগোচরে বাড়ির পাশে খালের পানিতে ডুবে শিশুটির মৃত্যু হয়েছে। বাড়ির পাশেই একটি জমিতে শিশুটির সৎকারের ব্যবস্থা করা হয়। তিন থেকে ছয় বছর বয়সী শিশুই চঞ্চল প্রকৃতির হয়। এ সময়টা শিশুদের বাড়তি যত্ন ও স্বজনদের সতর্ক থাকতে হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন