পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রেহেনারা এক ভাই ও এক বোন। প্রায় সাত বছর আগে তাঁর বাবা মারা যান। রেহেনার একমাত্র ভাই সততা ভূঁইয়া মাদকাসক্ত।

বছরখানেক আগে রেহেনার বিয়ে হয়। মাস তিনেক পর স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। বাড়ির জমিজমা নিয়ে ভাইবোনের মধ্যে বিরোধ ছিল। প্রায়ই সততা ভূঁইয়া তাঁকে মানসিক ও শারীরিকভাবে নির্যাতন করতেন। নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে মাকে নিয়ে এক খালাতো বোনের বাড়িতে বসবাস করতেন রেহেনা।

রাজবাড়ী সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, ওই তরুণী ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন। হাসপাতালে ভর্তির কিছু সময় পরে তিনি মারা গেছেন। তিনি ঘটনাটি তদন্ত করে দেখছেন।

রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসক নুরুন নাহার বলেন, সন্ধ্যার দিকে ওই তরুণীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁকে চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছিল। তিনি মাথা ও বাঁ হাতে আঘাত পেয়েছিলেন। তাঁর বাঁ পা ভেঙে গিয়েছিল। হাসপাতালে ভর্তির কিছু সময় পরে তিনি মারা গেছেন।