আজ বুধবার দুপুরে জেলা পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল তাঁর কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) তরিকুল ইসলামসহ অনেকে।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, মেঘনা গ্রুপের নির্মাণাধীন এনইপিসি পাওয়ার প্ল্যান্ট-৩ প্রকল্পে কর্মরত তিন চীনা নাগরিকসহ আরও কয়েকজন কর্মচারী উপজেলার পিরোজপুর এলাকায় একটি জমি ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছেন। ২০ জানুয়ারি সন্ধ্যায় তাঁদের আবাসস্থলে ১০-১২ জনের একদল সশস্ত্র ডাকাত হানা দেন। তাঁরা তিন চীনা নাগরিকসহ পাঁচজনকে হাত-পা বেঁধে মারধর করে ১১ লাখ ৭৪ হাজার টাকা সমমানের ডলার লুট করে নিয়ে যান।

ঘটনার পরদিন ২১ জানুয়ারি জমির মালিক বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় মামলা করলে থানা–পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ যৌথ অভিযান শুরু করে। মঙ্গলবার রাতে ডাকাত দলের হোতা ওমর ফারুককে গ্রেপ্তার করা হলে তিনি ডাকাতির ঘটনায় জড়িত ১০-১২ জনের নাম উল্লেখ করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। পরে তাঁর দেওয়া তথ্যমতে গ্রেপ্তার করা হয় ডাকাত দলের আরও চারজনকে। অন্য সদস্যদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা।