আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বেলা সাড়ে ১১টায় সম্মেলনের উদ্বোধন করেন। আবদুল হাইয়ের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আমিরুল আলম, পারভিন জামান, গ্লোরিয়া সরকার, স্থানীয় সংসদ সদস্য শফিকুল আজম খান, আনোয়ারুল আজীম, তাহজিব আলম সিদ্দিকী প্রমুখ। সমাবেশ পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম।

সম্মেলনের প্রথম পর্ব শেষে দ্বিতীয় পর্ব শুরু হলে ওবায়দুল কাদের জেলা কমিটি বিলুপ্তি ঘোষণা করেন। এরপর তিনি নতুন কমিটির সভাপতি হিসেবে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সংসদ সদস্য আবদুল হাই এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে সাইদুল করিমের নাম ঘোষণা করেন। দলের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে ঝিনাইদহ আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব এই দুজনের হাতেই দেওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানান ওবায়দুল কাদের।

আবদুল হাই ঝিনাইদহ সরকারি কেসি কলেজে পড়াকালে ছাত্র রাজনীতিতে যুক্ত হন। তিনি কেসি কলেজের ছাত্র সংসদের সহসভাপতি (ভিপি) ছিলেন। পরে ঝিনাইদহ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। একপর্যায়ে জেলা যুবলীগের দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি ঝিনাইদহ-১ (শৈলকুপা) আসনের সংসদ সদস্য।

সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম একসময় করেছেন ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ। ২০১১ সালে তিনি ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হন। মেয়রের দায়িত্ব পালনকালে মানববর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য পুরস্কৃত হন সাইদুল করিম। এ ছাড়া প্রকৌশলীদের সঙ্গে কাজ করে আগাখান পুরস্কার পেয়েছেন তিনি।