গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে বরিশাল সদর উপজেলার সাহেবেরহাট কলেজ গেটসংলগ্ন কড়ইতলা নদীতে নিখোঁজ হন সুজন মল্লিক। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দলের সদস্যরা অভিযানে নামেন। গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত অভিযান চালানো হলেও সুজনের সন্ধান পাওয়া যায়নি। রাতে অভিযান স্থগিত করেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। এরপর আজ সকালে তাঁরা ও কোস্টগার্ডের ডুবুরিরা যৌথভাবে অভিযান শুরু করেন। কড়ইতলা নদীর ঘটনাস্থল থেকে অন্তত ৩০ ফুট দূর থেকে সুজনের লাশ উদ্ধার করে কোস্টগার্ডের ডুবুরি দল।

সুজন বরিশাল সদর উপজেলার টুঙ্গীবাড়িয়া ইউনিয়নের বিশারদ গ্রামের বাসিন্দা ইসাহাক মল্লিকের ছেলে। তিনি ঢাকার উত্তরায় একটি ফার্মেসির বিক্রয় প্রতিনিধি হিসেবে চাকরি করতেন।

মারা যাওয়া সুজনের ভাই সবুজ মল্লিক বলেন, ঈদের ছুটিতে সুজন বাড়িতে এসেছিলেন। গত সোমবার দুপুরে সুজন তাঁর পাঁচ থেকে ছয়জন বন্ধুনিয়ে কড়ইতলা নদীর বন্দর থানাসংলগ্ন এলাকায় গোসল করতে নামেন। এসময় তাঁরাসাঁতরে নদীর অপর প্রান্তে যান। সেখান থেকে ফেরার সময় মাঝনদীতে নিখোঁজ হন সুজন।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান নিখোঁজ সুজনের লাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন