ফরিদপুরে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। রোববার সন্ধ্যায় রাজেন্দ্র কলেজ ছাত্র সংসদের (রুকসু) ভবনে এ ঘটনা ঘটে
ছবি: প্রথম আলো

ফরিদপুরে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। আজ রোববার সন্ধ্যা সাতটার দিকে সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের শহর শাখা ক্যাম্পাস-সংলগ্ন রাজেন্দ্র কলেজ ছাত্র সংসদের (রুকসু) ভবনে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ছাত্রলীগের পাঁচ নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। খবর পেয়ে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহত ব্যক্তিরা ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বেশ কিছুদিন ধরে জেলা শাখার সভাপতি তামজিদুল রশিদ চৌধুরী ওরফে রিয়ান ও সাধারণ সম্পাদক ফাহিম আহমেদের নেতৃত্বে বিভক্ত জেলা ছাত্রলীগ। একটি হত্যা মামলার কারণে তামজিদুল রশিদ বেশ কিছুদিন ফরিদপুরের বাইরে ছিলেন। হাইকোর্ট থেকে ছয় সপ্তাহের জামিন নিয়ে ৭ সেপ্টেম্বর তিনি ফরিদপুরে আসেন।

রুকসু ভবনে অবস্থানরত ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতা-কর্মীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আজ সন্ধ্যা সাতটার দিকে সভাপতি তামজিদুলের অনুসারী শহর ছাত্রলীগের মিজানুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ফাহিম আহমেদের অনুসারী শহর ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক সজীব আহমেদের অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে সজীব আহমেদ ও তাঁর দুই অনুসারী ফয়সাল, বাপ্পি আহত হয়ে জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। মিজানের পক্ষের দুজন পায়ের আঙুলে আঘাত পেয়েছেন, তবে তাঁদের পরিচয় জানা যায়নি।

সজীব আহমেদ বলেন, সাধারণ সম্পাদক ফাহিম আহমেদ ও তাঁর অনুসারীরা রোববার সন্ধ্যা সাতটার দিকে রুকসু ভবনে বসে গল্প করছিলেন। ওই সময় শহর শাখার সভাপতি মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে বেশ কয়েকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তাঁদের ওপর হামলা চালান। তবে এ ব্যাপারে শহর শাখার সভাপতি মিজানুর রহমানের সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তামজিদুল রশিদ বলেন, মিজানুর রহমানের অনুসারী এক কর্মীকে সজীব আহমেদের সমর্থকেরা টেনেহিঁচড়ে মারধর শুরু করলে এ ঘটনা ঘটে। তিনি বলেন, তিনি ঘটনার সময় বাড়িতে ছিলেন। পরে বিষয়টি তিনি জানতে পেরেছেন।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুমন রঞ্জন সরকার বলেন, ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের খবর শুনে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় দুই পক্ষের চার-পাঁচজন আহত হয়েছেন। সংঘর্ষের বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

২০২১ সালের ১৯ মে তামজিদুল রশিদ চৌধুরী ওরফে রিয়ানকে সভাপতি ও ফাহিম আহমেদকে সাধারণ সম্পাদক করে জেলা ছাত্রলীগের ২৫ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। গত ২৯ এপ্রিল শহর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সজীব আহমদকে তাঁর দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয় জেলা ছাত্রলীগ। তবে অব্যাহতির কারণ জানানো হয়নি।

সরকারি রাজেন্দ্র কলেজে বর্তমানে ছাত্র সংসদ নেই। তবে ওই কলেজের ছাত্র সংসদ ভবনটি ২০২১ সালের ২৯ এপ্রিল থেকে নিজস্ব কার্যালয় হিসেবে ব্যবহার করছে জেলা ছাত্রলীগ।